• মুক্তিযোদ্ধার-মৃত্যু-নেই
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু নেই, একাত্তুরের অব্যর্থ-ট্রিগার

    মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু নেই খলিফা আশরাফ   কিছু কিছু তারুণ্যের মৃত্যু নেই কোন, বাড়ে না বয়স জীবনকে অকম্পিত যে ধরেছে অগ্নিশিখায় নিশ্চিত মৃত্যু মুখে দাঁড়িয়েছে সটান অনড় অকুতোভয় দিয়েছে পাল্লা সিংহের সাথে আঙ্গুলের ফলায় তুলেছে হায়েনার চোখ তাকে আর মৃত্যুভয়ে যাবে না দমানো বিনাশের আদ্যপান্ত বিলক্ষণ জানা আছে তার, মনে রেখো, জীবনকে জিতেছে সে মরনের মাঝে একাত্তুরের রণাঙ্গনে যে খেলেছে অজস্র মৃত্যুখেলা বেয়োনেটের অগ্রভাগে বেঁধেছে যে পরমায়ু সুতো গ্রেনেডের ছত্রিশ টুকরো আকণ্ঠ নিয়েছে তুলে স্টেনগানের ফুটোয় ফুটোয় দিয়েছে ফুঁৎকার মর্টারের গোলার সাথে করেছে দোস্তি আমরণ যমদূতের কণ্ঠ চেপে লক্ষ লাশের মাঝে অকুতোভয় দীপ্র হাতে উড়িয়েছে বিজয় কেতন মরনের কথা তারে শুনিওনা…

  • বিষণ্ন-বাসন্তী-বাংলা
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    বিষণ্ন বাসন্তী বাংলা

    বিষণ্ন বাসন্তী বাংলা খলিফা আশরাফ   তোমাকে পসরা সাজিয়ে তুখোড় দোকানীর মতো বানিয়ে মূলধন আজকাল চলছে ব্যবসা চুটিয়ে, ময়দানে মাঠে পরিপাটি আলোচনা টেবিলে কিম্বা ধুমায়িত চায়ের কাপে তোমার মুখে ঠোঁট রেখে ফুটাচ্ছে খই হামেশাই কুশলী কারিগর সব। হায়রে বাংলাদেশ এখন তোমাকে নিয়ে বাহারী প্রদর্শনী, গিলে করা পাঞ্জাবী পাট করা চাদর আর শোভন চশমার কাঁচে অহরহ তোমার বাসন্তী ছবি উৎকীর্ণ করে কপট দেশপ্রেমের জোয়ার বয়ে যায়, অনায়াসে কেউ কেউ তোমার দেহে মৌরসি পাট্টার কায়েমী দখল জাহির করে, আবার কেউবা তোমার জন্ম-লগ্নে ধাত্রীর অধিকারে দুর্লঙ্ঘ স্বত্ত্বের কথা বলে, অতঃপর সেই সব দুরাচারী ব্যবসায়ী সব সুবর্ণ কাসকেটে অপরূপ সাজিয়ে তোমায় নিলামের বাজারে উঠায়,…

  • এসেছি-স্বাধীনতা-সাথে-করে
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    এসেছি স্বাধীনতা সাথে করে, তখন মানুষ মানুষ ছিলো না

    এসেছি স্বাধীনতা সাথে করে খলিফা আশরাফ   আদিগন্ত প্লাবিত রক্তজল মাড়িয়ে  তুমি যখন দাঁড়ালে সন্মুখে,  তখন তোমার প্রদীপ্ত চোখে  কনকোজ্জ্বল আনন্দ-জ্যোতি খেলা করছে,  স্থির অচঞ্চল তুমি গভীর প্রত্যয়ে,   তোমার হাতে মুখে সমস্ত শরীরে রক্তের আলপনা  সার্টে, লুঙ্গিতে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে লালের জমাট কারুণ্য,  মাংস ভেদ করা গুলির ক্ষত চিহ্ন তোমার দক্ষিণ বাহুতে  আরক্ত কানের ছেঁড়া লতিটা অসহায় দুলছে উত্তাল হাওয়ায়,  তোমার দু’পা বেয়ে তখনও রক্তের ঝর্ণা-ধারা,  অথচ কি আশ্চর্য  রক্তস্নাত মুখে তখনও তুমি অবলীলায় হাসছো অমলিন।   তোমার শরীরে হাজার বছরের সৌরভময় পলিমাটির ঘ্রণ  শর্ষে ফুলের সুবর্ণ রেনু দ্যুতি ছড়াচ্ছে চোখের পাতায়  প্রশস্ত কপালে শ্যামল বাংলার অপার নিসর্গঅটুট প্রোজ্জ্বল,  তোমার রক্ত-ক্লিষ্ট…

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    নেই সেই সাহসী মানুষ

    নেই সেই সাহসী মানুষ খলিফা আশরাফ   সেই অমিত বিক্রম সাহসী পুরুষ যারা একদা লাঠি হাতেই নির্ভীক দাঁড়িয়েছিলেন আধুনিক সমরাস্ত্রসজ্জিত শত্রুর মুখে কিম্বা প্রদীপ্ত সেই অগ্নি-নারী বটি হাতেই ছিলেন প্রতিরোধের অগ্রভাগে এখন আর দেখা যায়না তাদের, মানুষের ভেতরের সাহস মরে গেছে যেন প্রতিবাদী কণ্ঠ উচ্চকিত নয় কোথাও গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়েছেন সবাই মেনে নিয়েছে অনাচার বঞ্চনার সকল দংশন আশ্রিত ইতর প্রাণীর মতোই বদলেছে আচার স্বভাব,     অথচ প্রকৃতি বদলায় নাই খোলস যেমন প্রাণবন্ত ছিলো সবকিছু, আছে ঠিকঠাক ফুলের সুবাস আছে, কণ্টকের তেমনই তীক্ষ্ণ ধার আজও দহন করে প্রখর সূর্যতাপ আগ্নেয়গীরির বিচ্ছুরণ ঘটে নির্দিষ্ট সমীকরন মেনে নদীও বিপুল আক্রোশে ভেঙ্গে…

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    ঝাপসা স্মৃতিগুলো

    ঝাপসা স্মৃতিগুলো খলিফা আশরাফ   গাজনা বিলের পানকৌড়ির ডুব আর অন্তরঙ্গ পদাবলী খুব প্রিয় ছিলো তোমার ভরা বর্ষায় দিক্বিদিক যখন জলাকীর্ণ তখন দুই ক্রোশ মাড়িয়ে নৌকোয় যেতাম গাজনার বিলে তুমি আলতো করে হাত বুলাতে নীল পদ্মের গায়ে বায়না ধরতে ডুব-সাঁতারু পানকৌড়ি এনে দিতে শহরে বেড়ে ওঠা তোমার কাছে এ সবের আবেদন ছিলো ভিন্ন মাত্রার গুচ্ছ গুচ্ছ পদ্মফুলে তুমি আহ্লাদে আটখান হতে কিম্বা কপালে চন্দন আঁকা শুভ্র বসনা যুবতি বোষ্টমীর পদাবলী কীর্তনের নিবেদিত সুর অনুপম ছড়াতো যখন বিষণ্ণ বিকেলে তুমি অপূর্ব বিস্ময়ে চেয়ে থাকতে তার মুখের দিকে যেন কোন দেবী নেমে এসেছে দেবালয় হতে দূর্বাঘাসে শিশিরের সৌন্দর্যও জানা ছিলো না তোমার…

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    অপূর্ণ সাধ, নিঃশব্দে চলে যাওয়া

    অপূর্ণ সাধ, নিঃশব্দে চলে যাওয়া খলিফা আশরাফ   হয়তো এভাবেই নরক যন্ত্রণায় অপূর্ণ সাধ রেখেই একদিন চলে যেতে হবে, যে স্বপ্ন দেখেছিলাম অগ্নিঝরা একাত্তুরে এ জীবনে হবেনা পূরণ, ভেবেছিলাম, বিপুল রক্তস্রোতে মুছে যাবে বিভেদ গ্লানি মালিন্য মনের পরিশুদ্ধ হয়ে যাবে বাঙ্গালির সকল হৃদয় এদেশ গড়ে তুলবে ভালোবাসায় পরম শ্রদ্ধায় শ্রমার্ঘ ঢেলে দেবে জননী জন্মভূমির পায়ে বাংলাদেশ ছড়াবে বিস্ময় বিজয়ের নন্দিত সুবাস সারা বিশ্বময় ঘরে ঘরে পৌঁছে যাবে মঙ্গল বারতা সৌহার্দ সম্প্রীতিতে উঠবে গড়ে অগণন ত্যাগ-ঋদ্ধ কাঙ্ক্ষিত নতুন সমাজ,     হয়নি কিছুই প্রিয় জন্মভূমি বিপন্ন, রক্তস্নাত আজ নৃশংস ঠুকরে খাচ্ছে আগ্রাসী শকুন পিশাচ ঘোঁত ঘোঁত শুয়োরের দল দাপিয়ে ছিঁড়েখুঁড়ে ফালা…

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    নতুন দিন আসে

    নতুন দিন আসে খলিফা আশরাফ   জীবন বিখণ্ড ভীষণ বিবাদ বিষাদে আস্থার পূতপাত্র শুন্য এখন আদিগন্ত মোহনীয় আলেয়ার আলো বিশ্বস্ত আস্তিনে ঢুকেছে বিষাক্ত বৃশ্চিক অকাল বৈধব্য বসন সময়ের গায়ে বীতশ্রদ্ধ কর্মযোগ অবসন্ন ক্লান্ত অবসরে দীর্ঘশ্বাসে নত হয় অসহায় সুনীল আকাশ বিষবড়ি ফেরি করে লম্পট সময় স্খলনের বর্ণাঢ্য অভিষেক রাজ দরবারে,     তবুও দেবতা মন্দিরে সঙ্গোপনে নিরন্তর কল্যাণদীপ জ্বলে সুপয়া হাতে নির্ভার প্রাত্যহিক শঙ্খধ্বনি বাজে সুবেহ সাদেকে শোনা যায় ‘হাই আলাল ফালাহ’ জ্যোতির্ময় দিন আলো ফেলে সটান জেগে ওঠে প্রত্যয়ী সাহসী মানুষ মুছে ফেলে অর্বাচীন বিভাজন-রেখা অঙ্গীকারে হাতে হাত মুষ্ঠিবদ্ধ মানবিক দায় শ্বেত-পতাকা ওড়ে সমর সংঘাতে জীবন এগিয়ে যায় জীবনের…

  • পেটুক-সমাচার
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    পেটুক সমাচার

    পেটুক সমাচার খলিফা আশরাফ   সবাই বলে লোকটা নাকি ভীষণ রকম পেটুক নিংড়ে মুছে সবটুকু খায়, যেথায় পায় যেটুক, আড়ে আড়ে চায় অন্যরা কি খায়? গেলে কিছু বাদ বাড়বে অবসাদ যতোই খাক মনের ভেতর অতৃপ্তি তার জাগে আহা মজার ওই খানাটা পরেনি তার ভাগে ! ছুটবে ত্বরা করে যাবে হেঁসেল ঘরে খুঁজে ওদিক ওদিক বেড় করবে ঠিক লাজ লজ্জার মাথা খেয়ে সে বসবে হেঁসেলেই কে কি বললো থোরাই কেয়ার সুখটা খাওয়াতেই,   সর্বভুক এমন পেটুক আছে আশেপাশে নিয়ম নীতি দেশ জনতা খাচ্ছে গোগ্রাসে।   ঢাকা ১৭জুলাই, ২০২১।

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    দিয়েছো বিনিদ্র রাত

    দিয়েছো বিনিদ্র রাত খলিফা আশরাফ   বিনিদ্র চোখে জেগে থাকে রাত ক্ষয়িষ্ণু চাঁদের ক্ষীণ আলো সকাতর ছুঁয়ে যায় বিষণ্ণ প্রকৃতি জলজ তৃষ্ণা চোখের ভেতর দুঃখের নির্লিপ্ত আঁচর গেঁথে থাকে বুকে ভাবনার দুরন্ত আক্রোশ তাড়ায় আমাকে তখনো তোমার স্পর্শ খুঁজি আমি বিপন্ন শূন্যতা ফিরে আসে,   বিপন্ন আমি তোমার ঐশ্বর্য সান্নিধ্যে সুখদ আশ্রয়ের শরণাগত হই বিপ্রতীপ প্রত্যার্পণে বিরহী ওষ্ঠ ফিরে আসে অঙ্গীকারের সোনালী কাবিলে অস্বস্তির উচ্ছ্বাস ঢালে খর্বকায় মূষিক প্রবর তোমার স্পর্শিত আবেগি করতলে দীর্ঘ প্রবঞ্চনা এঁকেছে আলপনা বুকের গভীরে যেইখানে রেখেছিলে হাত অশুদ্ধ চিনচিনে ব্যথা করে আন্দোলন,   আমার বিনিদ্র রাত গুরুভার হয় প্রলম্বিত যন্ত্রণা বিঁধে থাকে চোরকাঁটার মতো।  …

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    বুকের ভেতর কষ্ট গাঁথা

    বুকের ভেতর কষ্ট গাঁথা খলিফা আশরাফ   বলার কথা আছে অনেক বলার মতো ইচ্ছে কই, বলতে গেলে উথলে ওঠে ব্যথার নদী অথৈ থৈ । তার চাইতে অনেক ভালো বুকেই কষ্ট তুলে রাখা, নিত্য মরণ আঁকড়ে ধ’রে নীলকণ্ঠ হয়ে থাকা। স্তরে স্তরে কষ্টগুলো জমে জমে পাথর হবে, নীলকান্ত, পান্না, চুনি অমল–জ্যোতি আলো দেবে। সেই আলোতেই পথের দিশা সে আলোতেই বেঁচে থাকা, কষ্ট পুষে হৃদয়-পু্রে সুপ্ত আশা জাগিয়ে রাখা ।

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    ভস্মীভূত হবে দুর্নীতির সূতিকাগার

    ভস্মীভূত হবে দুর্নীতির সূতিকাগার খলিফা আশরাফ   কখনো কখনো আমি নিজের সাথেই নিজে কথা বলি বলি একাত্তুরের রক্তস্নাত রণাঙ্গনের কথা জীবন বাজি রাখা স্বপ্নের কথা অন্তরঙ্গ স্বরে স্বপ্ন ভঙ্গের বেদনার কথা বলি, আমি বাস্পরুদ্ধ কণ্ঠে শহীদ সহযোদ্ধার কথা বলি তাঁর ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মাংসের দলা খুঁজি বিস্ময়ে তাকিয়ে দেখি ছিটকে যাওয়া মগজ হৃদপিণ্ড আমি কম্পিত হাতে আমার ক্ষতচিহ্ন স্পর্শ করি, আমার ভেতরটা কেঁদে ওঠে আমি অজস্র রক্তক্ষরণে বিক্ষুব্ধ হই নিউরনে অবিশ্রান্ত অশান্ত অগ্নি-দ্রোহের প্রপাত আমার চোখে রক্তাক্ত একাত্তুর খেলা করে,   আমি চরম ঘৃণায় কৃতঘ্ন কুলাঙ্গার বাঙ্গালীর কথা বলি আমি নরকীট ঘাতকের কথা বলি লেবাসধারী ক্ষমতালোভী লুটেরার কথা বলি অর্থলিপ্সু…

  • কামালপুর-হাট
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    বাজারদর

    বাজারদর খলিফা আশরাফ   বাজার দর লাগামহীন মাথায় বোঝা বাড়ছে ঋণ দামে সবই আকাশ ছোঁয়া সাধ-স্বপ্ন যাচ্ছে খোয়া সাক-সবজী আটা-চাল তেল-নুন-পেঁয়াজ-ডাল জোগাড় করতে জীবন সাড়া সকল কিছুই নাগাল ছাড়া কর্তার মুখে তা ধীন বোল “সবই তো আন্ডার-কন্ট্রোল না খেয়ে কেউ মরছে নাতো কিসের দুঃখ কষ্ট এতো ?” হায় অদৃষ্ট, হায়রে কপাল শুনে এসব, জীবন নাকাল নুন আনতে পান্তা ফুরায় মরলে কেবল জীবন জুড়ায় ।।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

  • কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    কামিয়াবি কালপুরুষ সে

    কামিয়াবি কালপুরুষ সে খলিফা আশরাফ   তার যা করার, করেনা কিছুই যা করার নয় সোৎসাহে করে অনায়াসে তাতে দেশ বা জনতার কি হোল নিতান্তই গৌণ তার কাছে মুখ্য নগদ নারায়ন, প্রতিদিন ফুলে ফেঁপে উঠছে বেঢপ পেট নামে বেনামে সম্পদের পাহাড় বিদেশেও রয়েছে এন্তার, কোন রাখঢাক নেই তার নিন্দা গালি গায়ে মাখেনা তেমন থোরাই কেয়ার করে জনতার রোষ, অনেকেই বলে, সুরক্ষা ছাতা আছে মাথার উপড়ে অবিরাম বর্ষিত আশীর্বাদ আর সে কারনেই তার বেয়াড়া স্বভাব, ভ্রূক্ষেপহীন চালাচ্ছেন লাগাতার অনীতিযজ্ঞ দেশের নাভীশ্বাসে বিন্দুমাত্র ক্লেশ নেই তার মিথ্যাচারে গোয়েবলস মেনেছে পরাজয় কামিয়াবি কালপুরুষ সে।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

  • টাকার-মোহ
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    টাকার মোহ

    টাকার মোহ খলিফা আশরাফ   টাকার পিছে ছুটছে সবাই ঘুরছে দমের কল, টাকার জন্য চরকী মানুষ ছুটছে অবিরল। সত্য-সাধু নিয়ম-নীতি যাচ্ছে উঠে শিকায়, শ্রদ্ধা-স্নেহ ভালোবাসা টাকার দরে বিকায়। সাধ-অভিলাষ টাকা পাওয়া টাকার পাহাড় ছোঁয়ার, সব আয়োজন জীবন-বাজি ধরতে টাকার জোয়ার । জীবন যেন টাকায় কেনা আজগুবি এক গোলাম টাকার কাছেই নতজানু টাকার পায়েই সেলাম। টাকা যখন মুখ্য চাওয়া জীবন ধু ধু ফাঁকা সুখ শান্তি যাবে উড়ে থাকবে শুধু টাকা। তখন অর্থ অনর্থ হয় সকল সাধেই মাটি, টাকার দরে সুখ-শান্তি সোনার পাথর বাটি ।।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

  • বৈরীর-কালের-গল্প
    কবিতা,  খলিফা আশরাফ,  সাহিত্য

    ভালবাসা দাও প্রভু, শুধু ভালবাসা

    ভালবাসা দাও প্রভু, শুধু ভালবাসা খলিফা আশরাফ   অনন্ত ভালোবাসার ইচ্ছে জাগে মনে একটি জীবন শুধু, ক্ষনিক বিকাশ কতোটুকু ভালোবাসা যায় ? হৃদয় নিংড়ে নিংড়ে যতো ভালোবাসি তবুও ভেতর থেকে অপূর্ণতা হাসে কণ্টক বিদ্ধ করে, অতৃপ্ত দহন জাগে অন্তর গহীনে প্রাণের অতল মর্মমূলে তৃষ্ণা জেগে থাকে, চিনচিনে ব্যথা যন্ত্রণা জানান দেয় খর্বকায় সাধ্যের সীমা, হায় বিধাতা, এ কেমন কৃপণ দান ? কেন এ স্বল্প ক্ষণিক জীবন ? অখণ্ড সময় দাও, অনন্ত প্রনয় অমেয় সাধ্য দাও তৃপ্ত ভালোবাসার, অর্থ নয় বিত্ত নয় চাইনা প্রাচুর্য সম্ভার সুরম্য প্রাসাদ নয়, দীপিত জৌলুশ জীর্ণ কুটির না হয় দিয়ো ভরে দিয়ো নিখাদ ভালবাসায়, সেই ভালোবাসার…

error: Content is protected !!