বৈরী-রাজ্য
কবিতা,  পূর্ণিমা হক,  সাহিত্য

বৈরী রাজ্য, ফেরা হয় যদি আবার

বৈরী রাজ্য

পূর্ণিমা হক

 

বিশুদ্ধ চিন্তার সুখবোধ নিয়ে
যখন তন্দ্রাচ্ছন্ন নয়ন গভীর চিন্তায় মগ্ন
দহিতা আমি দেখি—-
নষ্ট মনের বিষন্ন অবয়বের সুখবোধটুকু ভাসে
ভালো থাকার ভেলাহীন আশ্রয়ে
ঠিকানার খোঁজে।

হৃদয় সমুদ্রের নীল ঢেউ খেলে
আদিমতার নগ্ননৃত্যে,
ভাঙ্গে চেনা পাড় অদৃশ্যে
শব্দহীন কষ্টের স্রোতে,
বেদনা সুখের সংশ্রবের সীমানায়
রেখা টানে মিশ্রনের রঙ।

কাব্য নদের গহীন নীল জলে
বৃষ্টি ব্যথার শিলাবৃষ্টির ঘাত,
মনোকাশ কাঁদে দহিত যাতনায়
বিমুখ বৈরিতায় হারায় কাব্যের ভাষা।
দিকভ্রান্ত মনের পরিচিত পথে
স্বকরুণ নির্বোধ খেলা চলে
নৈসর্গের নিয়ম মেনে।
সহস্র নিশিযাপনে এখনো যেখানে
কষ্টের রাণী হয়ে বেচেঁ রই
আমারই বৈরী রাজ্যে।

যেখানে নিয়ত যন্ত্রণার অনুচর্চায়
স্বরলিপি লেখা হয় নিশির নিশিকাব্যে,
যেখানে স্বপ্নেরা ভেঙ্গে শিরদাড়
ভুলে যায় হাঁটার অনুপ্রেরণা
বেঁচে থাকে চিরকাল অবোধ হামাগুড়িতে।

 

ফেরা হয় যদি আবার

ফেরা হয় যদি ছেলেবেলায় আবার
ঘাসফুল হয়ে রবো বুনোলতার ছায়;
মাথার উপরে শরতের চাঁদ
হিল্লোলিত সারাক্ষণ
নিঃশঙ্ক হাওয়ায় ভেজা রাত,
পত্রপুটে রেখে দেবো
মায়ার শরাব।

ফেরা হয় যদি আবার
ধুলোমাখা মলিন বসনে–
কুড়াবো বকুল,পলাশ,শিমুল
কোচাভরা পাকা পাকা কুল,
রাঙাবো আলতা পায়ে
পরে নেব কলাপাতা নূপুর।

ফেরা হয় যদি আবার
পেছনের তামাটে জীবন ভুলে
কাটবো সাঁতার শাপলাফোটা বিলে
স্মৃতিকুড়ানী হবো,
ঘুরে ঘুরে চেনা প্রান্তরে
গাইবো দুঃখ ভোলানিয়া গান
কোকিলের মধুক্ষরা স্বরে।

ফেরা হয় যদি আবার
নিস্তব্ধ রাতের প্রার্থনায়
স্রষ্টার কাছে মিনতি রেখে মৃত্যুপুরীর রোজনামচা থেকে
কেটে নেবো বাবার নাম!
নির্ভার হাতটি ধরে
হেঁটে হেঁটে চলে যাবো
আমাদের বাড়ী।

আরও পড়ুন কবিতা-
তিতাস নদীর পাড়ে
কবি ও কবিতা
বাংলার কৃষক
স্বর্গসুখ
দাঁড়িয়ে আছি ভুল দরজায়

 

ঘুরে আসুন আমাদের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলফেসবুক পেইজে

বৈরী রাজ্য

Facebook Comments Box

প্রকৌশলী মো. আলতাব হোসেন, সাহিত্য সংস্কৃতি এবং সমাজ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নিবেদিত অলাভজনক ও অরাজনৈতিক সংগঠন "আমাদের সুজানগর"-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং "আমাদের সুজানগর" ওয়েব ম্যাগাজিনের সম্পাদক ও প্রকাশক। সুজানগর উপজেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, শিক্ষা, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতি ব্যক্তিবর্গ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে ভালোবাসেন। বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি স্বনামধন্য ওয়াশিং প্লান্টের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেকশনে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৯২ সালের ১৫ জুন পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত হাটখালী ইউনিয়নের সাগতা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!