বিল-গাজনার-চিল
কবিতা,  মযলুম মুসাফির,  সাহিত্য

বিল গাজনার চিল

বিল গাজনার চিল

মযলুম মুসাফির (ছদ্মনাম) 

 

আমি ভাই এক বিল গাজনার পাখি,
গোপন কথাটি বুকের ভিতরে রাখি।
বাসা বেঁধে করি বাস
গাজনায় বারোমাস
পাখা মেলে মেলে দু’চারটি মাছ ধরি
এমনি করেই শূন্য উদর ভরি।

 

হাটখালী যাই, যাই যে সৈয়দপুর,
সাগতা,বাদাই যদিও বহুতদূর
দেখি সব ঘুরে ঘুরে
আমার দৃষ্টি জুড়ে
দুলাই,উলাট আর রহে খয়রান,
সমস্ত গাঁ’র আমি এক মেহমান।

 

কভু যাই আমি বোনকোলা ও দুরিয়া,
বদনপুর,শাড়িরভিটা দেখি ঘুরিয়া
আমার ইচ্ছে যত
মিটাই মনের মত
কামালপুরের হাটের গাছেতে বসে,
দেখে নেই কেবা মুরগীর ছানা পোষে।

 

মনে নাই ঠিক মাসটি হয়তো মাঘ,
হাকিমপুরটি ফেলিয়া ভাদরভাগ।
সেই গাঁয়ে কিছুক্ষণ
বসে বসে করি পণ
বিশ্রাম নিয়ে বাঘুলপুরেতে যাব,
একমাছ ধরে মগডালে বসে খাব।

 

নুরুদ্দিনপুর গিয়েছি বারংবার,
ঘনশ্যামপুর রয়েছে তাহার ধার।
রাঘবপুরের কাছে
আমার মনেতে আছে
শিকার করেছি মুরগির এক ছানা,
জননী তাহার ধরেছিল মোর ডানা।

 

চরগজারিয়া রয়েছে চরের পর,
বোনকোলাবাসী বেঁধেছে সেথায় ঘর।
গ্রামটি বিলের ধারে
আমার মনটা কাড়ে
বাতাসে ভাসিয়া উড়ে উড়ে আমি চলি,
আর বলে যাই কত শত পদাবলী।

 

বেলাশেযে আজ হয়ে গেছি আমি বুড়া,
মনে পড়ে যায় সেই গ্রাম শোলাকুড়া।
টানে মোর সব গাঁয়ে
ডানেতে অথবা বাঁয়ে
সব চিনি আমি প্রতিঘর তার দ্বোর,
চোর,বাটপার, সুদ আর ঘুষখোর।

 

রাণীনগরের বাপের বেটীরা রাণী,
তারা ভালোবাসে বিল গাজনার পানি।
ধান,মাছ এই বিলে
থাকে তারা সবে মিলে
সুখেতে সবাই পায়না দুখেরে ভয়,
মুখেতে সবার বিল গাজনার জয়।

 

ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

Facebook Comments Box

প্রকৌশলী মো. আলতাব হোসেন, সাহিত্য সংস্কৃতি এবং সমাজ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নিবেদিত অলাভজনক ও অরাজনৈতিক সংগঠন "আমাদের সুজানগর"-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং "আমাদের সুজানগর" ওয়েব ম্যাগাজিনের সম্পাদক ও প্রকাশক। সুজানগর উপজেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, শিক্ষা, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতি ব্যক্তিবর্গ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে ভালোবাসেন। বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি স্বনামধন্য ওয়াশিং প্লান্টের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেকশনে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৯২ সালের ১৫ জুন পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত হাটখালী ইউনিয়নের সাগতা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!